ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন অবশেষে শুধুমাত্র ১৪ টি দেশকে ট্রাভেল করার জন্য অনুমতি দিয়েছে

ইউরোপিয়ান-ইউনিয়ন-অবশেষে-শুধুমাত্র -১৫-টি-দেশকে-ট্রাভেল-করার-জন্য-অনুমতি-দিল

বিবিসি তথ্য অনুসারে, ইউরোপীয়ান ইউনিয়ন ১৪ টি দেশকে নিরাপদ হিসাবে ঘোষণা করছে সেই দেশের নাগরিকরা ১ জুলাই থেকে মহামারী সত্ত্বেও ইউরোপে ট্রাভেল করতে পারবে কোনো বাদ্যবাধকতা ছাড়া।

গত শুক্রবার ২৬ জুন ইউ ৫৪ টি দেশের একটি খসড়া তালিকা তৈরি করছিলো। তবে, ২৯ জুন তালিকার পরিবর্তন করে কেবল ১৪ টি দেশকে অন্তর্ভুক্ত করে।

ইউরোপীয় ইউনিয়ন দেশগুলির নতুন তালিকা প্রকাশ করেছে যে ১ জুলাই থেকে ইইউতে প্রবেশের অনুমতি দেওয়া হবে, সীমানা আনুষ্ঠানিকভাবে পুনরায় চালু হওয়ার সময় নির্ধারণ করা হলেও করোনাভাইরাসের উন্নয়নের কারণে আমেরিকা বাদ পড়েছে।

ইউরোপের “নিরাপদ তালিকায়” অন্তর্ভুক্ত দেশগুলি, যাদের নাগরিকরা ইউরোপে প্রবেশের অনুমতি পাবে তারা হলেন: আলজেরিয়া, অস্ট্রেলিয়া, কানাডা, জর্জিয়া, জাপান, মন্টিনিগ্রো, মরোক্কো, নিউজিল্যান্ড, রুয়ান্ডা, সার্বিয়া, দক্ষিণ কোরিয়া, থাইল্যান্ড, তিউনিসিয়া এবং উরুগুয়ে, শেঞ্জেনভিসাআইএনফো ডটকম রিপোর্ট করেছে।

কূটনীতিকরা বলছেন, চীনা সরকার ইইউ যাত্রীদের জন্য পারস্পরিক চুক্তি দিলে ইইউ চীনকে যুক্ত করতে প্রস্তুত রয়েছে।

বেক্সজিট যেহেতু চূড়ান্ত হয় নাই সেহেতু ইউকে নাগরিক অন্যনো ইউ দেশের মতোই মুভমেন্ট করতে পারবে। ২০২০ সালের ৩১ শে ডিসেম্বর পূর্বে , ইউরোপীয় ইউনিয়নের নাগরিকদের মতো একই আচরণ করা হবে।