যে ৬ টি দেশে ফ্রীতে স্টাডি করা যায়

বেশিরভাগ শিক্ষার্থীর উচ্চতর পড়াশোনার জন্য বিদেশে যাওয়ার স্বপ্ন দেখে, উচ্চশিক্ষার ক্ষেত্রে সবচেয়ে বড় সমস্যা হলো টিউশন ফিস প্রধান করা। যুক্তরাষ্ট্র ,যুক্তরাজ্য, কানাডা এবং অস্ট্রেলিয়ার মতো দেশে পড়াশোনা করা অনেক ব্যয়বহুল। যদি উল্লেখিত দেশে ফুল স্কলারশিপ ব্যবস্থা করা না যায় তাহলে বাংলাদেশী ছাত্রদের জন্য স্টাডি করা অনেক কষ্টসাদ্য হয়ে যায়।

আপনি যদি কোনও বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সম্পূর্ণ অর্থায়িত স্কলারশিপ ব্যবস্থা করতে ব্যর্থ হন বা টিউশন ফিস দিতে অক্ষম হন তবে সেই বিশ্ববিদ্যালয়গুলিতে ভর্তি হতে পারেন যেখানে টিউশন ফিস সম্পূর্ণ ফ্রি। এর মধ্যে হলো জার্মানি, ইতালি, নরওয়ে, আইসল্যান্ড, বেলজিয়াম এবং অস্ট্রিয়া সেই সব দেশ গুলুতে বিদেশী শিক্ষার্থীদের জন্য সম্পূর্ণ ফ্রীতে কম টিউশন ফিস অফার করে থাকে।

প্রোভিসিয়াল-রেসিডেন্ট-পার্মিট

শীর্ষ যে ৬ টি দেশে ফ্রীতে স্টাডি করা যায়

1. জার্মানি ​

বিদেশী শিক্ষার্থী জার্মানিতে উচ্চ শিক্ষার জন্য দিন দিন বেড়েই চলেছে কারণ কিছু বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয় ছাড়া পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় গুলুতে ফ্রি টিউশন ফিস অফার করে থাকে ।

ফ্রি টিউশন দেশ হিসাবে জার্মানি শীর্ষ তালিকায় রয়েছে যেখানে যে কোনও বিদেশী ছাত্র বিনা ব্যয়ে স্নাতক এবং মাস্টার প্রোগ্রামগুলি পড়তে পারবেন। প্রতি বছর প্রশাসনিক ফি ,বাসের টিকিট, ক্যাফেটেরিয়ার বাবদ100 থেকে 200 ইউরো প্রদান করতে হয়।

প্রতি বছর, DAAD প্রায় 120,000 এরও বেশি উচ্চ দক্ষ জার্মান এবং বিদেশী শিক্ষার্থীদের বিনামূল্যে জার্মানিতে পড়াশোনা করার জন্য আর্থিক সাহায্য প্রদান করে থাকে।

2. নরওয়ে

নরওয়ে এমন আরও একটি দেশ যেখানে বিদেশী শিক্ষার্থীরা কোনও টিউশন না দিয়েই স্নাতক, স্নাতক এবং ডক্টরাল প্রোগ্রাম সহ সমস্ত প্রোগ্রাম অধ্যয়ন করতে পারে। তবে শিক্ষার্থীকে কেবলমাত্র 300 থেকে 600 NOKএর মধ্যে সেমিস্টার ফি প্রদান করতে হয় ।

বেশিরভাগ বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয়গুলিতে সকল ধরণের প্রোগ্রামের জন্য টিউশন ফি প্রধান করতে হলেও , যা যুক্তরাষ্ট্র, অস্ট্রেলিয়া, কানাডা এবং যুক্তরাজ্যের চেয়ে অনেক কম টিউশন ফি হয়ে থাকে ।
অন্যদিকে, জীবনযাপন ইউরোপের অন্য কোনও দেশের চেয়ে ব্যয়বহুল। জীবনযাত্রার ব্যয় বার্ষিক 90,000-100,000 NOK হবে।

3. অস্ট্রিয়া

অস্ট্রিয়া বিদেশী শিক্ষার্থীদের জন্য বিশ্বের সেরা দেশ, যেখানে বিদেশী শিক্ষার্থীদের প্রতি সেমিস্টারে কেবল ভর্তি ফি দিতে হয় 726.72 ইউরো । তবে ফেডারেল / পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলি অস্ট্রিয়ান এবং ইইউ / ইইএর শিক্ষার্থীদের ভর্তি ফি বাবদ প্রতি সেমিস্টারে প্রায় € 363 চার্জ করে থাকে। যদি কেউ সম্পূর্ণ অর্থায়নে সচলারশীপ ব্যবস্থা করতে ব্যর্থ হয় তবে অস্ট্রিয়া হবে স্নাতক, স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জনের জন্য ভাল জায়গা।

4. বেলজিয়াম

অস্ট্রিয়ার মতো বেলজিয়াম বিশ্ববিদ্যালয়ে ও বিদেশী শিক্ষার্থীদের জন্য সাশ্রয়ী মূল্যের টিউশন ফি সহ অফার করে থাকে । একজন আন্তর্জাতিক শিক্ষার্থীকে প্রতি বছর 835 ডলার থেকে 4,175 টিউশন ফি প্রদান করতে হয়।

আপনি যদি পিএইচডি করেন যে কোনও বেলজিয়াম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে, গবেষণা চালানোর জন্য আপনাকে অর্থ প্রদান করা হবে। এগুলি ছাড়াও বেলজিয়ামের বিশ্ববিদ্যালয়গুলি বিদেশী শিক্ষার্থীদের বৃত্তি দিয়ে থাকে । বেলজিয়ামে বিদেশী ছাত্রদের জন্য কিছু বিখ্যাত বিশ্ববিদ্যালয় রয়েছে এর মধ্যে অন্যতম হল : KU, Ghent University and League University।

5. ইতালি

উচ্চ শিক্ষার গুণমানের কারণে অনেক শিক্ষার্থী ইতালিতে পড়াশোনা করতে বেছে নেয়। ফ্রি টিউশন ফির পাশাপাশি স্কলারশিপ সুযোগ সুবিধা আছে বিদেশী ছাত্রদের জন্য । অস্ট্রেলিয়া, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা এবং যুক্তরাজ্যের মতো ব্যয়বহুল দেশে উচ্চ শিক্ষার করতে না পারলে আপনি ইতালিতে পড়াশোনার জন্য বেছে নিতে পারেন।

ইইউ এবং নন-ইইউ শিক্ষার্থীদের জন্য টিউশন ফি নির্ভর করে শিক্ষার্থীদের পারিবারিক আয় এবং যে প্রোগ্রামের জন্য আবেদন করা হয়।একটি সরকারী বিশ্ববিদ্যালয়ে টিউশন ফী সর্বনিম্ন € ৫০০ থেকে সর্বোচ্চ €৪০০০ পর্যন্ত হয়ে থাকে। ইতালীয় বিশ্ববিদ্যালয়গুলি মেধা এবং অর্থনৈতিক অবস্থার ভিত্তিতে আন্তর্জাতিক শিক্ষার্থীদের বৃত্তি দেওয়া হয়।

6. আইসল্যান্ড

আইস্ল্যাণ্ড একটি নর্ডিক দেশ এবং আন্তর্জাতিক শিক্ষার্থীদের জন্য অধ্যয়নের সেরা স্থান। তারা বিভিন্ন ধরণের প্রোগ্রাম যেমন ব্যাচেলর, মাস্টার্স এবং পিএইচডি অফার করে ইংরেজি মাধ্যমের। আইসল্যান্ডিকের পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় আন্তর্জাতিক শিক্ষার্থীর জন্য টিউশন ফী নেই তবে বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয় প্রায় ৪,000 থেকে ১৬,0000 টিউশন ফি নেয়।
উপরের মূল্যায়ন থেকে আপনি সিদ্ধান্ত নিতে পারেন কোন দেশের জন্য বিদেশে পড়াশোনা করা আপনার পক্ষে ভাল।